রবিবার, ৩ সেপ্টেম্বর ২0১৭
  • হোম » উত্তরবঙ্গ » কোচবিহারে রাস্তা নিয়ে পুরপ্রধান বন্দুক রাখলেন বিধায়কের উপরে




কোচবিহারে রাস্তা নিয়ে পুরপ্রধান বন্দুক রাখলেন বিধায়কের উপরে

কলকাতা নিউজ ২৪ : 03/09/2017

IMG-20170903-WA0031

 

 

 

 

 

 

 

নিজস্বপ্রতিনিধি কোচবিহার, ৩রা সেপ্টেম্বর। “কবে হবে রাস্তা, পুজোর আগে কোচবিহার শহরের রাস্তা কি ঠিক হবে ?”- কোচবিহার দক্ষিন কেন্দ্রের বিধায় মিহির গোস্বামী ও কোচবিহার পুরসভার পুরপ্রধান ভুষন সিং কে একসাথে এই প্রশ্ন করা হয়েছিল আজ। এক সাংবাদিক বৈঠকে এই প্রশ্ন উঠে আশে। উত্তরে ভূষণ বাবু বন্দুক রাখেন মিহির বাবুর ওপরে। তিনি বলেন-“যা জানে ইনি (মিহির বাবু কে দেখিয়ে) জানেন।এনার থেকেই শুনে নিন।” কার্জত এলাকার বিধায়ক হিসাবে মিহির বাবু বলেন- আমারা এভাবে বলি না কাজ টা করে দেখাই।কাজ হবে কিন্তু পুজোর আগে না পড়ে তা এখুনি বলতে পারছি না… তবে কাজ হবে।” তার উত্তরে বিরাট ধোয়াশার সৃষ্টি হয়েছে। পুজোর বাকি মাত্র ২৩ দিন আর এর মধ্যে কোচবিহারের শহরের প্রধান রাস্তা থেকে কানেক্টিভ রাস্তা গলি পথ সব বেহাল হয়ে পরে আছে। একাধিক বিগ বাজেটের পুজো প্যান্ডেলে যাওয়ার জন্য এই রাস্তা গুলিই একমাত্র মাধ্যম।কোচবিহার বাসির চিন্তা এবার পুজোয় এই ভাঙ্গা রাস্তা নিয়ে চড়ম ভোগান্তির স্বীকার হবেন তারা।

কোচবিহার শহরে প্রধান সড়ক ৮ টি তারসাথে আছে ৫২ টি সংযোগ কারি রাস্তা। এই রাস্তা গুলি অবশ্য একে অপরের সাথে সংযুক্ত।এর ফলে কোচবিহারে কখন যাতায়াতের শুবিধা হয় না। একটি কিংবা দুটি রাস্তা বন্ধ থাকলেও সংযোগ রাস্তা দিয়ে চলাচল করা যায়। এবার দেখা যাক কোচবিহারে ২০১৬ র নিরিখে ছোটো বড় মিলিয়ে মোট পুজো হয়েছিল ৭১ টি এবার ২টো বেড়ে ৭৩ হয়েছে।এই সবই শহর কেন্দ্রিক। নিত্যানন্দ আস্রমের দশোমির ঘাটে যেতে আশ্রম রোড পেরোতে হবে সব ঠাকুর কে, সেক্ষেত্রে রাস্তার অবস্থায় ট্রাক অল্টানর সম্ভাবনা থাকছে।আবার বিগ বাজেটের পুজো গুলি রাস্তার কারনে রীতিমত নিজেদের মণ্ডপ স্বজ্জার ক্ষেত্রে কিছুটা পিছু টান দিয়েছে।ঘোষ পাড়া, দুর্গা বাড়ি, শান্তি কুটির এর মত ক্লাব গুলির কথায়-মণ্ডপ করে কি হবে রাস্তার কারনে ৫০% মানুষ এদিকে আসবে না। এ কি বিড়াম্বনা। কেনো কাজ হচ্ছে না। পুরসভা থেকে PWD কন্ট্রাক্টার সকলের কাছেই আছে অর্থ পূর্ন অজুহাত।পুরসভার সূত্রে বলা হচ্ছে- টাকা আছে কিন্তু বৃষ্টিতে কাজ করলে তার মান হবে না ১ বছরের মধ্যে আবার কাজ করতে হবে। PWD এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার নিমাই চন্দ্র পাল বলেন- আমরা বৃষ্টিতে কাজ করি না রাস্তার কাজ জুলাই থেকে অক্টবর পর্জন্ত বন্ধই থাকে।এবার বন্যাতে আরো ক্ষতি হয়েছে রাস্তার তাই কাজ সুগঠিত ভাবে করতে হবে… হালকা ভাবে করলে হবে না। কোচবিহারের বাসিন্দা- দেবেশ রায়, রিঙ্কু পাল, চিত্যরঞ্জন তালুকদার দের কথায়- ২০১৬ সালে অক্টবর মাসে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তর থেকে ৪৪কোটি টাকা এসেছিল শহরের রাস্তা সারাই এর জন্য, একাধিক সংবাদ পত্রে এই খবর প্রকাশিত ও হয়েছিল… তাহলে ১বছর পরেও কেন শ্রবাসী কে বেহাল রাস্তার গল্প শুনতে হচ্ছে? কোনো উত্তর নেই বিধায় ও পুরপ্রধানের কাছে। এদিন তারা অস্বছতা রেখেই চলেগেলেন… উত্তরের অপেক্ষাতেই থাকল কোচবিহার শহর বাসী ও পুজো কমিটি গুলি।



Executive Editor: Akash Biswas
Associate Editor : Advocate Anshuman Sengupta
Address : kolkata
E-mail: [email protected]
© Copyright 2015 FILM & CRCC Computer center All rights reserved.