বৃহস্পতিবার , ৭ সেপ্টেম্বর ২0১৭




বাবা-মায়ের ন্যয় বিচারের প্রতিক্ষা

কলকাতা নিউজ ২৪ : 07/09/2017

1475260884

 

 

 

 

 

কোচবিহার

চার বছর আগের ঘটনা, তখন গ্রামের সব জায়গায় বিদ্যুতের আলো পৌছায়নি। গ্রামের বিভিন্ন বাজার গুলিতে বিদ্যুতের আলো আছে। সেই সময় মোবাইল ফোনের একটা বিপ্লব ঘটেছে গ্রাম গুলিতে, তাই ছেলে বুড়ো সকলের হাতে একটা করে ফোন ছিল। ফোন গুলিতে মেমোরী কার্ড লাগিয়ে গান শোনা ও সিনেমা দেখত। কিন্তু বিদ্যুৎ না থাকায় সবাই ৩ টাকার বিনিময়ে ফোন চার্জ করে নিত। আমিও সেদিন বাজারে ফোন চার্জ করে বাড়ি আসি।  বাড়ি এসেই খাওয়া দাওয়া করে একটা সিনেমা দেখলাম এর ফলে ব্যাটারীর চার্জ শেষ হয়ে যায় এবং ফোন টি সুইচ অফ হয়, আমি তখন ঘুমিয়ে পড়লাম।

রাত্রি ১১ টার দিকে দাদা বাজার থেকে বাড়ি এসে আমাকে ডেকে জানতে চাইল আমার ফোন সুইচ অফ কেনো ?

তার জন্য দাদা আমাকে গালি দিলো তারপর সে খেতে বসল আর আমাকে তার ঘরে ডাক। আমি বিছানা থেকে উঠে দাদার ঘরে গেলাম, দাদা আমাকে বাবাকে ডাকতে বলল। আমি দাদার মুখে বাবাকে ডাকার কথা শুনে অবাক হয়ে গেলাম, ভাবতে লাগলাম বাবা তো ঘুম গেছে ঘুমন্ত বাবাকে সে কেনো ডাকতে বলছে?

এই সময় হঠাৎ করে দাদার ফোন বেজে উঠল সে ফোনটি বাবাকে দিতে বলল। আমি কিছু কথা না বলে ফোনটি হাতে নিয়ে বাবার রুমে গেলাম এবং বাবাকে জাগিয়ে ফোনটি দিলাম। বাবা ফোনটি হাতে নিয়ে বলল –“হ্যালো কায়? ”

অপর প্রান্ত থেকে একটা কান্নার আওয়াজ ভেসে আসলো যেটা শুনে আমি চমকে উঠলাম, সে হলো আমার ছোটদি। সে ফোনে কান্নার স্বরে বাবার কথার উত্তর দিলো — “হ্যালো আব্বা” ।

আমার বাবাও আমার মতো চমকে ওঠে জিঞ্জেস করল — “কি হইছে। কান্না করিস ক্যানে” ।

অপর প্রান্ত থেকে ছোটদি করুণ কান্নার সুরে উত্তর দিল — “আব্বা নাই তোমার বড় বেটি মরি গেইছে,  সে আর কোনোদিন আইসপে না” ।

ছোটদির কথা শুনে আমার সমস্ত শরীর বেয়া যেনো এক ভয়ানক বিদ্যুৎ বয়ে গেল। আমি সঙ্গে সঙ্গেই একটা ব্রেন্চে বসে পড়লাম, আমার মাথা তখন বনবন করে ঘুরছে, এমনিতেই অন্ধকার তার মধ্যে আমি আরো অন্ধকার দেখতে লাগলাম, ওই সময় যেনো আমার কানে একটা আওয়াজ ও  ঢুকেছিল  না, আমি পুরোপুরি ঞ্জানশুন্য হয়ে পরেছি। তবুও ওই সময় বাবার কথা শুনতে পেলাম। বাবা তখন ফোন হাতে নিয়ে ডুঁকরে ডুঁকরে কাঁদছে অপর প্রান্তে ছোটদিও ডুঁকরে ডুঁকরে কাঁদছে। বাবা কাঁদছে আর বলছে — “কেমন করি হইল” ।

ছোটদি বলল— “জানি না, বড় বুজানের বাড়িত মুই, তোমার জামাই,



Executive Editor: Akash Biswas
Associate Editor : Advocate Anshuman Sengupta
Address : kolkata
E-mail: [email protected]
© Copyright 2015 FILM & CRCC Computer center All rights reserved.