শুক্রবার, ২৭ অক্টোবর ২0১৭
  • হোম » উত্তরবঙ্গ » সাবেক ছিটমহলের সৌরবিদ্যুৎ চালিত সেচ পাম্পগুলরি সরঞ্জাম চুরির অভিযোগ




সাবেক ছিটমহলের সৌরবিদ্যুৎ চালিত সেচ পাম্পগুলরি সরঞ্জাম চুরির অভিযোগ

কলকাতা নিউজ ২৪ : 27/10/2017

images

 

 

 

 

 

 

 

সাবেক ছিটমহলের জমিতে সেচের কাজে লাগানো সৌরবিদ্যুৎ চালিত পাম্পগুলির সরঞ্জাম চুরিতে উদ্বিগ্ন সাবেক ছিটবাসীরা। প্রশাসনকে এব্যাপারে জানানোর পরও এখনও পর্যন্ত দুষ্কৃতীরা ধরা পড়েনি। সরঞ্জাম চুরির ফলে পাম্পগুলি আর চালানো সম্ভব হচ্ছে না। চোরেদের দৌরাত্ম্যে সাধের এই প্রকল্প শুরুর মুহূর্তেই মুখ থুবড়ে পড়েছে। মাথাভাঙা নলগ্রাম, ফলনাপুরের মতো একাধিক সাবেক ছিটে সৌরবিদ্যুৎ চালিত পাম্পসেট থেকে সরঞ্জাম চুরি হয়ে গিয়েছে।

ছিট বিনিময় প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হওয়ার পর সাবেক ছিটমহলের সামগ্রিক উন্নয়নের লক্ষ্যে সরকার একগুচ্ছ পরিকল্পনা গ্রহণ করে। এরমধ্যে অন্যতম ছিল সাবেক ছিটমহলের কৃষি জমিতে জলসেচের ব্যবস্থা করা। নিখরচায় কৃষকরা যাতে জমিতে জলসেচের ব্যবস্থা করতে পারেন সেজন্য সৌরবিদ্যুৎ চালিত পাম্প বসানো হয়। এজন্য মাঠের মধ্যে বড় বড় সোলার প্যানেল বসানো হয়েছে। সাবেক ছিটবাসীদের অভিযোগ, পাম্পগুলি বসানো হয়েছে খোলা জায়গায়। একটি বক্সের ভিতর সমস্ত সরঞ্জাম রাখা রয়েছে। এজন্য কোনও পাম্প হাউস তৈরি করা হয়নি। চোরের দল খুব সহজেই রাতের অন্ধকারে বিনা বাধায় এসব বক্স ভেঙে সরঞ্জাম চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে।

সাবেক ছিট ফলনাপুরের বাসিন্দা রমেশ্বর বর্মন বলেন, সৌরচালিত পাম্পসেট থেকে সরঞ্জাম চুরির ঘটনায় আমরা উদ্বিগ্ন। পুলিশ ও প্রশাসনকে আমরা সমস্ত কিছু জানিয়েছি। এখনও পর্যন্ত একটি চুরিরও কিনারা হয়নি। সাবেক ছিট নলগ্রামের বাসিন্দা শ্যামল মহন্ত বলেন, সৌরবিদ্যুৎ থেকে চাষের জমিতে জল ব্যবহার করলে বাসিন্দাদের কোনও খরচ হত না। এগুলি বসানোর পর আমরা খুশি হয়েছিলাম। কিন্তু আমাদের পাশাপাশি কয়েকটি পাম্পের সরঞ্জাম চুরি হয়ে গিয়েছে। আমরাও প্রশাসনকে সমস্ত কিছু জানিয়েছি। শীতলকুচির বিডিও অঞ্জন চৌধুরি বলেন, সাবেক ছিটমহলের সৌরবিদ্যুৎ চালিত সেচ পাম্পগুলরি সরঞ্জাম চুরির অভিযোগ পেয়েছি। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। শীতলকুচির বিধায়ক হিতেন বর্মন বলেন, সেচ পাম্পের সরঞ্জাম কারা চুরি করেছে এব্যাপারে বাসিন্দাদেরও সজাগ থাকা উচিত। পুলিশ ও প্রশাসনকেও এব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। বাসিন্দারা সহযোগিতা করলে চোরদের ধরা সহজ হবে।



Executive Editor: Akash Biswas
Associate Editor : Advocate Anshuman Sengupta
Address : kolkata
E-mail: [email protected]
© Copyright 2015 FILM & CRCC Computer center All rights reserved.